ঢাকা, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯, ৮ বৈশাখ ১৪২৬
---
Tattho
প্রথম পাতা » নারীমঞ্চ » সেক্স ও শরীর…… যৌনানন্দ..!!
রবিবার ● ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮, ৮ বৈশাখ ১৪২৬
Email this News Print Friendly Version

সেক্স ও শরীর…… যৌনানন্দ..!!

সেক্স ও শরীর…… যৌনানন্দ..!!
=======================
---
শরীরকে বাদ দিয়ে সেক্সকে কখনো কল্পনা করা যায় না । নারীর সাধারণত দুই ধরনের । যেমন- নারীর শরীর এবং পুরুষের শরীর । তাই সেক্সকে জানতে হলে প্রথমে শরীরকে জানতে হবে, জানতে হবে যৌন অঙ্গ প্রত্যঙ্গের বৈচিত্র্যতা ।

পুরুষের যৌন অঙ্গ প্রত্যঙ্গসমূহ….

পুরুষের সাধারণ যৌন অঙ্গ বা মেল সেক্সুয়াল অর্গাজম হল অন্ডকোষ যা কি না এক প্রকার অন্ডথলির ভেতরে অবস্থান করে । আর এই অন্ডকোষে শুক্র তৈরি হয় । আর এ শুক্র থেকেই মানব শিশু জন্ম লাভ করে । যৌনমিলনের সময় পুরুষাঙ্গ বা পেনিসের ছিদ্র পথ দিয়ে শুক্র নির্গত হয় । পুরুষের জননযন্ত্রের প্রধান অংশটি হচ্ছে দুটি যথা টেস্টিস বা অন্ডকোষ এবং পুরুষাঙ্গ বা পেনিস । এছাড়া এগুলোর সাথে সম্পর্কযুক্ত অন্যান্য যৌন অংশগুলো হচ্ছে- এপিডিডিমিস, প্রস্টেটগস্ন্যান্ড, শুক্রবাহী নালী, শুক্রথলি ( সেমিনাল ভেসিকল ), ভাসডিফারেন্স, বস্নাডার, কপারগস্ন্যান্ড, পায়ুপথ বা মলদ্বার ।

পুরুষাঙ্গের গঠন ও কর্মকান্ড ( পেনিস ফাংশন )

এটি পুরুষের যৌনতার প্রধান অঙ্গ । এই অঙ্গের সাহায্যেই পুরুষরা অবর্ণনীয় তীব্র যৌনসুখ লাভ করে থাকেন । এটি নারীদের যোনিতে প্রবেশ করে প্রচুর সেক্স পেস্নজার সৃষ্টি করে । সেই সাথে আরেকটি নতুন জীবন তৈরির উপাদান বীর্য ছড়িয়ে দেয় ।

এই পুরুষাঙ্গটি অন্ডকোষের সামনে ঝুলন্ত অবস্থায় থাকে । এটি দেখতে প্রায় একটা বুড়ো আঙ্গুলের মত । এই পেনিসটি হচ্ছে পুরুষের প্রস্রাব ( ইউরিনেশন ) করার এবং নারী সহবাস করার একমাত্র এবং অভিন্ন চমৎকার যন্ত্র । লিঙ্গের যে অংশটি দেহের সাথে অর্থাৎ বস্তিদেশে বা পেলভিসে যুক্ত থাকে তাকে বলে লিঙ্গ মল বা গোড়া । এর পর থেকে লিঙ্গ গ্রীবার কাছে গোড়া খাঁজরে মত অংশ পর্যন্তকে বলে লিঙ্গ দেহ । বাকি অংশটুকু অর্থাৎ সেই দেহের ডগায় বা লিঙ্গের অগ্রভাগে টুপির মত দেখতে যে লালচে বর্ণের কোমল মাংসপিন্ডের অংশটি দেখা যায় তাকে বলে লিঙ্গমণি বা লিঙ্গমন্ডু বা গস্ন্যান্স । এই লিঙ্গ মুন্ডের সামনের দিকটা ঈষৎ সরু হয়ে এসেছে এবং এর মুখের কাছেই থাকে মত্রনালীর মুখ । পুরুষাঙ্গের এই অগ্রভাগ বা অংশটি খুবই স্পর্শকাতর’ তথা অত্যন্ত যৌন অনুভূতিশীল অংশ।

আমাদের পুরুষাঙ্গটি ‘স্পঞ্জের মত’ এক প্রকার নরম সংকোচনশীল ও সম্প্রসারণশীল পেশিতন্তু বা উত্থানশীল তন্ত বা ইরেক্টাল টিস্যু দিয়ে গঠিত । এর মধ্যে অসংখ্য রক্তবাহী নালী ও নার্ভের শাখা-প্রশাখা ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে । স্বাভাবিক অবস্থায় লিঙ্গ বা পুরুষাঙ্গটি নরম ও ছোট থাকে কিন্তু সেক্স উত্তেজনার সময় এইসব রক্তনালীতে প্রচুর রক্ত এসে পূর্ণ হয়ে যায় ফলে এটি আকারে বৃদ্ধি পেয়ে লম্বা, মোটা-তাজা ও দৃঢ় হয় আর একেই বলে ইরেকশন অফ পেনিস বা পুরুষাঙ্গের উত্থান ।
কারো কারো লিঙ্গ উত্তেজিত হলে শক্ত হয়ে ডানে বা বামে বেঁকে যায়- এটা স্বাভাবিক এটা কোনো রোগ নয় । একজন পূর্ণ বয়স্ক লোকের পুরুষাঙ্গের আকার স্বাভাবিক ও সুপ্ত অবস্থায় ৩-৪ ইঞ্চি পর্যন্ত লম্বা থাকে এবং এর পরিধি বা ঘের প্রায় ২-৩ ইঞ্চির মত চওড়া থাকে ।
কিন্তু্তু সেক্স উত্তেজনার সময় এবং যৌনমিলনের মজাদার সময় এটি উত্থিত উত্তেজিত হয় এবং শক্ত ও মোটা হয় এবং আকারে বৃদ্ধি পেয়ে লম্বা প্রায় ৫-৭ ইঞ্চি পর্যন্ত হয় এবং এর পরিধিটিও বৃদ্ধি পায় অর্থাৎ অনেকটা মোটা হয় প্রায় ৩-৫ ইঞ্চির মত । তবে পুরুষদের লিঙ্গের স্বাভাবিক আকার সবার বেলায় সমান নয় । ক্ষেত্র বিশেষে এটি কম বেশি ছোট বড়, মোটা, চিকন হয় । তবে সুখের কথা লিঙ্গের এই ছোট বড় মাপের জন্য যৌনক্ষমতা বা ভিরিলিটি যৌন সুখ, যৌন আরাম এবং সন্তান উৎপাদনের ক্ষমতা বা ফার্টিলিটির সাথে তেমন কোনো আহামরি সম্পর্ক বা যোগসূত্র নেই ।
অনেকের মাঝে এরকম ভ্রান্ত ধারণা আছে যে, পুরুষাঙ্গের আকৃতির কিছুটা ছোট হলে তারা হয়ত সেক্সুয়াল লাইফে সেটিসফাইড হতে পারবেন না । তাই অনেক সময় এরকম ভাবনার বশবর্তী হয়ে তারা নানা রকম মানসিক চাপ, মানসিক অশান্তি, ভয় ও অহেতুক দুশ্চিন্তায় ভুগতে থাকেন । কিন্তু এটা ঠিক নয় । তবে এই মেন্টাল কমপেস্নক্সের সাথে যদি শারীরিক কোনো অক্ষমতা বিদ্যমান থাকে তবে অবশ্যই চিকিৎসা সহায়তা গ্রহণ করার প্রশ্ন আসে ।

অন্ডকোষ বীর্যের ভান্ডার…..

পুরুষের যৌন ইন্দ্রিয় বা পুরুষাঙ্গের পেছনে যে দুটি গ্লান্ড বা বিচি একত্র ঝুলতে দেখা যায় তাকেই বলে অন্ড । এই দুটি অন্ড যে থলি বা আবরণের মধ্যে থাকে তাকে বলে অন্ডকোষ বা স্ক্রুরোটাম । এই অন্ড দুটিকে পুরুষের যৌনগ্রন্থ্থি বা ম্যাল সেক্স গ্র্যান্ডস বলে । মেয়েদের যৌনগ্রন্থ্থি যেমন তাদের দুটি ডিম্বাশয় বা ওভারি তেমনি পুরুষদের সেক্সগ্রন্থ্থি হচ্ছে এই অন্ডকোষ ।

মেয়েদের ডিম্বাশয়ের প্রধান কাজ হল যেমন ডিম্বাণু তৈরি করা ও স্ত্রী হরমোন ক্ষরণ করা তেমনি পুরুষদের অন্ড দুটির কাজ হচ্ছে শুক্রকীট প্রস্তুত করা এবং পুরুষ হরমোন ক্ষরণ করা । এই হরমোন নিঃসৃত হয়ে সরাসরি রক্তের সাথে মিশে যায় । এই হরমোন পুরুষের সেকেন্ডারি সেক্স কেরেক্টার গঠনে যথা যৌনাঙ্গের স্বাভাবিক গঠন, যৌনক্ষমতা ও প্রজনন সংক্রান্ত কাজে প্রভাব বিস্তার করে ।

বীর্যতে কি থাকে……

বীর্যের মাথায় ক্রোমোজম থাকে এটি পুরুষের উর্বরতার উদ্ভব ঘটায় । এক ফোঁটা বীর্যের মাথা হল একটি ক্ষুদ্র পিনের মাথার আকারের সমান । অণুবীক্ষণ যন্ত্রের সাহায্যে এটি দেখা যায় । একজন মানুষের দিনে প্রায় ৫০০ মিলিয়ন বা ৫০,০০০০০০০ কোটি ( পঞ্চাশ কোটি ) বীর্য কণা তৈরি হয় । বীর্য একা একা নিজে থেকেই লিঙ্গ থেকে পতন হতে পারে না । যৌনমিলনকালে বা অন্যকোনো উপায়ে যেমন হস্তমৈথুনের সময় বীর্য স্খলন ঘটে । প্রতিবার যে পরিমাণ বীর্য স্খলন হয় তাতে ৪০-৫০ কোটির মত শুক্রকীট থাকে । কিন্তু মজার কথা হল নারীকে গর্ভবতী হওয়ার জন্য কেবলমাত্র একটি শুক্রকীটই যথেষ্ট ।

পুরুষের লিঙ্গের মাধ্যমে নারীর যোনি বা জরায়ু মুখে বীর্যরস নিক্ষিপ্ত হবার পর শুক্রকীটগুলো এক প্রকার লেজের দ্বারা সাঁতার কেটে জরায়ুর ভেতরে প্রবেশ করে এগিয়ে যায় । পুরুষের মধ্যে যখন যৌবনের আগমন ঘটে তখন তার টেস্টিসে বা অন্ডকোষে শুক্রকীট অনবরত তৈরি হতে আরম্ভ করে দেয় । আর এ সময় থেকেই পুরুষরা সন্তান জন্মদানে সক্ষম হয়ে ওঠে ।

গবেষকরা ল্যাবরেটরিতে টেস্টটিউবে কাচের মধ্যে গবেষণা করে দেখেছেন যে, শুক্র ব্যতীত অন্যান্য যেসব উপাদান বীর্যে পাওয়া যায় তার ৯০ শতাংশই তরল পানি জাতীয় উপাদান । এছাড়াও বীর্যে থাকে সুগার বা গ্লুকোজ যা কি না শুক্রাণুর কার্যকারিতা ও বলিষ্ঠতার জ্বালানিস্বরূপ । বীর্যে আরো থাকে ক্ষারীয় উপাদান । প্রোস্টেট গ্ল্যান্ডের কিছু পরিমাণ এনজাইম ও কিছুমাত্রায় ভিটামিন সি, কিঙ্ক এবং থাকে কোলেস্টেরল । দেহের বীর্য সংশেস্নষণ প্রক্রিয়াটি অন্যান্য দশ বারোটা শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়ার মতোই সাধারণ । এটি তৈরিতে বিশেষ রকমের খাদ্য উপাদানের সরবরাহের প্রয়োজন হয় না । আসল কথা হল বীর্যের সাথে খাবারের কোনো প্রত্যক্ষ বা ডাইরেক্ট সম্পর্ক নেই । যদি এ জাতীয় কোনো ধরনের সম্পর্ক থাকতো, তবে মাননীয় ডাক্তার মহাশয়বৃন্দরা প্রজনন বা সন্তান উৎপাদনে অক্ষম পুরুষদেরকে বেশি বেশি খাদ্য খেতে উপদেশ দিতেন ।

আমাদের দেহে প্রতিনিয়ত দিনরাত চব্বিশ ঘন্টা বীর্য তৈরি হচ্ছে আর তা সাময়িকভাবে সেমিনাল ভেসিক্যালে জমা থাকছে । ধারণক্ষমতা পূর্ণ হবার পরে এর বাড়তি অংশ যৌন সঙ্গম বা মাস্টারবেশন প্রক্রিয়া ও স্বপ্নদোষের মাধ্যমে তা বেরিয়ে যায় । একটা কথা সবারই মনে রাখা দরকার যে, দেহের মাঝে বিরতিহীনভাবে বীর্য সংশেস্নষণ ঘটছে স্খলনের উদ্দেশ্যে, জমা বা সঞ্চিত থাকার জন্য বয় । বীর্য নির্গমন যে প্রক্রিয়াই ঘটুক না কেন, তা মানব দেহের উৎপাদন কর্মকান্ডকে সচল, সবল আর গতিশীল রাখে । কাজেই স্বাভাবিক সেক্স সঙ্গম বা নিদ্রার মধ্যবর্তী স্বপ্নদোষ বা যে কোনোভাবেই হোক না কেন, বীর্যস্খলন বা বীর্যপাত ক্ষতিকারক নয় বরঞ্চ স্বাস্থ্যসমমত ।
এতক্ষণ আমরা পুরুষের সেক্স অঙ্গ প্রত্যঙ্গ সম্পর্কে যৎসামান্য জানতে পারলাম ।

এতক্ষণ জানতে পারলাম পুরুষাঙ্গের মত প্রধান কয়েকটি যৌন অর্গাজমের কার্যকলাপ । এখন আমরা অনুরূপভাবে নারী দেহ সম্পর্কে জানতে চেষ্টা করবো । বুঝতে চেষ্টা করবো ফুলের মত কোমল চাঁদের মত সুন্দর নারীদের সেক্স অঙ্গগুলোর কার্যকলাপ । পুরুষ আর নারী একই মুদ্রার এপিঠ ওপিঠ । একজনকে বাদ দিয়ে অন্যজনের সেক্স কোনোভাবেই ভাবা যায় না । নারী আর পুরুষের যৌথ অংশগ্রহণ ও মিলনেই পরিপূর্ণতা লাভ যৌনজীবনে । আর তার ফলেই রচিত হয় একটি সুখময়-তৃপ্তিময়-ভালোবাসাময় সুখী দাম্পত্য জীবন ।


মেডিকেলে বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার পূর্ণরূপ

শিক্ষার্থীরা! কি খাবেন আর কি খাবেন না?


এ বিভাগের আরো খবর...

গোপনে প্রতিটি মেয়ে ১০টি কাজ করে থাকে গোপনে প্রতিটি মেয়ে ১০টি কাজ করে থাকে
নারী ধূমপায়ীদের তালিকায় শীর্ষে এখন বাংলাদেশ নারী ধূমপায়ীদের তালিকায় শীর্ষে এখন বাংলাদেশ
পেটের মেদ কীভাবে কমাবেন? পেটের মেদ কীভাবে কমাবেন?
যৌনাকাঙ্খা কার বেশি, পুরুষ না নারীর? যৌনাকাঙ্খা কার বেশি, পুরুষ না নারীর?
জাপানের প্রাপ্ত বয়স্ক নারীদের ২৫% ভার্জিন জাপানের প্রাপ্ত বয়স্ক নারীদের ২৫% ভার্জিন
নিম্নমানের ৩ পানি কোম্পানির লাইসেন্স বাতিল, ৭টির স্থগিত নিম্নমানের ৩ পানি কোম্পানির লাইসেন্স বাতিল, ৭টির স্থগিত
বাংলাদেশে প্রডাক্ট বেইজ কোম্পানি ভেস্টিজের কার্যক্রম শুরু, শুধুমাত্র সময়ের ব্যাপার ! বাংলাদেশে প্রডাক্ট বেইজ কোম্পানি ভেস্টিজের কার্যক্রম শুরু, শুধুমাত্র সময়ের ব্যাপার !
ভেরিকোসিল ( Vericocele ) ভেরিকোসিল ( Vericocele )
সাদা স্রাব ( Leucorrhoea ) সাদা স্রাব ( Leucorrhoea )
শিক্ষার্থীরা! কি খাবেন আর কি খাবেন না? শিক্ষার্থীরা! কি খাবেন আর কি খাবেন না?

সর্বাধিক পঠিত

গোপনে প্রতিটি মেয়ে ১০টি কাজ করে থাকে গোপনে প্রতিটি মেয়ে ১০টি কাজ করে থাকে
নারী ধূমপায়ীদের তালিকায় শীর্ষে এখন বাংলাদেশ নারী ধূমপায়ীদের তালিকায় শীর্ষে এখন বাংলাদেশ
বৈশাখী মেলা থেকে ফেরার পথে কিশোরীকে গণধর্ষণ বৈশাখী মেলা থেকে ফেরার পথে কিশোরীকে গণধর্ষণ
আগুনে পুড়লো জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদ আগুনে পুড়লো জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদ
নায়িকা বানানোর কথা বলে ৩ মাস ধরে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ নায়িকা বানানোর কথা বলে ৩ মাস ধরে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ
পেটের মেদ কীভাবে কমাবেন? পেটের মেদ কীভাবে কমাবেন?
যৌনাকাঙ্খা কার বেশি, পুরুষ না নারীর? যৌনাকাঙ্খা কার বেশি, পুরুষ না নারীর?
মুক্তিযোদ্ধার নাতি পুতিরাও কোটা পাবে: প্রধানমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধার নাতি পুতিরাও কোটা পাবে: প্রধানমন্ত্রী
ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বিচার হবে যুদ্ধাপরাধীদের পর  : তুরিন আফরোজ ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বিচার হবে যুদ্ধাপরাধীদের পর : তুরিন আফরোজ
অনলাইন অর্ডারে ঘড়ির বদলে এলো দুটি পেঁয়াজ অনলাইন অর্ডারে ঘড়ির বদলে এলো দুটি পেঁয়াজ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
বেকারদের জন্য অনুপ্রেরনা…ফরিদপুর এর লিখন
বিশ্বের শীর্ষ ১৩ ‘ডিসিশন মেকার্স’ ক্যাটাগরিতে শেখ হাসিনা
টমেটো ধূমপানের ক্ষতি কমাবে
৩৪ বার কাটছাঁটের শিকার ‘কেয়া কুল’
ব্রেকআপের পরে ‘জাস্ট ফ্রেন্ড’ হওয়া সম্ভব না
প্রেমে পড়লে শরীরে যে ছয়টি মজার পরিবর্তন ঘটে