ঢাকা, রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮, ৪ ভাদ্র ১৪২৫
---
Tattho
প্রথম পাতা » আইন-আদালত » ভিখারির মেয়েকে ইউপি মেম্বারসহ ৫ জন মিলে ধর্ষণ
মঙ্গলবার ● ১০ জুলাই ২০১৮, ৪ ভাদ্র ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

ভিখারির মেয়েকে ইউপি মেম্বারসহ ৫ জন মিলে ধর্ষণ

পিরোজপুরে ভিখারির মেয়েকে ইউপি মেম্বারসহ ৫ জন মিলে ধর্ষণ
---
সারাদেশে প্রতিনিয়ত ধর্ষনের ঘটনা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। ধর্ষণের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না নিজের মেয়েও। ধর্ষণকে অপরাধই মনে হচ্ছে না লম্পটদের কাছে ।

লম্পটদের লালসার শিকার হচ্ছে দেশের হাজারো নারীও শিশু । এর জন্য আত্মহত্যার পথ বেচে নেয় অনেক কিশোরি।এবার ধর্ষনের শিকার হলেন ভিখারির মেয়ে এমন জগন্ন্য ঘটনার সাক্ষী হলো পিরোজপুর।

জানা গেছে পিরোজপুরে এক ভিখারির মেয়েকে দুই ইউপি মেম্বারের নেতৃত্বে তিন মাস ধরে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। দুই ইউপি মেম্বার সহ আরো পাচঁজনে তিন মাস ধরে মেয়েটিকে ধর্ষণ করলে অন্তসত্ত্বা হয়ে পরে সে।

অন্তসত্তা হওয়ার পর বিষয়টি জানাজানি হলে দুই ইউপি সদস্য মাসুদ ও নান্টু সহ পাচঁজনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছে মেয়েটির মা।স্থানীয়রা জানান, মা-মেয়েকে রেখে বাবা অনত্র বিয়ে করায় ভিক্ষা করে সংসার চালাতেন কিশোরীটির মা।

নির্জন স্থানে বাড়ী হওয়ায় ১৫ বছরের এ কিশোরীর উপর দৃষ্টি পড়ে এলাকার দুই ইউপি সদস্যের। তিন মাস আগে থেকে সুযোগ বুঝে তারা দিনের পর দিন ধর্ষণ করে মেয়েটিকে।

একপর্যায়ে ইউপি সদস্য মাসুদ ও নান্টুর সহযোগিতায় সাব্বির, মারুফুল ও সাইফুলও মেয়েটিকে ধর্ষণ করতে থাকে। এ সময় তারা হাত, পা ও মুখ বেঁধে মেয়েটির ওপর নির্যাতন চালাত। এরই মধ্যে মেয়েটি দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে।

মেয়েটির শারীরিক পরিবর্তনে মায়ের সন্দেহ হলে পরে সে সব খুলে বলে। এরপর এলাকার মুরুব্বিরা ব্যক্তিরা মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা করে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে পিরোজপুর সদর থানায় নিয়ে আসে।

এর পর থেকে মেয়েটি পিরোজপুর সদর থানার নিরাপত্তা হেফাজতে আছে। এ ব্যপারে টোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন জানান, এমন ঘটনা আসলেই হতাসা জনক ‘আমি চাই যারা এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত তাদের কঠোর শাস্তি হোক।’

টোনা ইউনিয়ন পরিষদের অভিযুক্ত দুই ইউপি সদস্য মাসুদ ও নান্টু এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করে জানান, ‘মেয়েটিকে দিয়ে আমাদের নাম কেউ বলাচ্ছে।’ আমাদের সাথে শত্রুতা করছে । আমাদের সম্মন হানি করার জন্য।


অভিনব কায়দায় প্রতারণা করে বিনিয়োগারীদের ১১ কোটি টাকা হাতিয়ে নিলো রহিম বাদশা

দুই মেয়ে ব্যারিস্টার, বাবা আর্মি অফিসার


এ বিভাগের আরো খবর...

মিথ্যা মামলায় কাউকে অযথা হয়রানি করা যাবে না: প্রধান বিচারপতি মিথ্যা মামলায় কাউকে অযথা হয়রানি করা যাবে না: প্রধান বিচারপতি
ভিখারির মেয়েকে ইউপি মেম্বারসহ ৫ জন মিলে ধর্ষণ ভিখারির মেয়েকে ইউপি মেম্বারসহ ৫ জন মিলে ধর্ষণ
হাতিরঝিল হবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ৫০তম থানা হাতিরঝিল হবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ৫০তম থানা
গুপ্তধন দেয়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে মা- মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ গুপ্তধন দেয়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে মা- মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ
প্রাথমিক চিকিৎসা- কাটা অঙ্গ জোড়া লাগান… প্রাথমিক চিকিৎসা- কাটা অঙ্গ জোড়া লাগান…
মজুদদারদের ব্যাপারে বঙ্গবন্ধু কি কিছু করেছিলেন? মজুদদারদের ব্যাপারে বঙ্গবন্ধু কি কিছু করেছিলেন?
আপনারা কি বিবাহিত? কাবিননামা দেখান। আপনারা কি বিবাহিত? কাবিননামা দেখান।
যৌন হয়রানির অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার [ভিডিও] যৌন হয়রানির অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার [ভিডিও]
দলীয় নেত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা : আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা দলীয় নেত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা : আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা
মাওলানা নিজামীর জানাযা ও মিডিয়ার মিথ্যা বেসাতী মাওলানা নিজামীর জানাযা ও মিডিয়ার মিথ্যা বেসাতী

সর্বাধিক পঠিত

মিথ্যা মামলায় কাউকে অযথা হয়রানি করা যাবে না: প্রধান বিচারপতি মিথ্যা মামলায় কাউকে অযথা হয়রানি করা যাবে না: প্রধান বিচারপতি
মিটফোর্ডে আট কোটি টাকার ভেজাল ও নকল ওষুধ জব্দ মিটফোর্ডে আট কোটি টাকার ভেজাল ও নকল ওষুধ জব্দ
বিজ্ঞ্যানে মুসলমানদের অবদান… বিজ্ঞ্যানে মুসলমানদের অবদান…
দুই মেয়ে ব্যারিস্টার, বাবা আর্মি অফিসার দুই মেয়ে ব্যারিস্টার, বাবা আর্মি অফিসার
ভিখারির মেয়েকে ইউপি মেম্বারসহ ৫ জন মিলে ধর্ষণ ভিখারির মেয়েকে ইউপি মেম্বারসহ ৫ জন মিলে ধর্ষণ
অভিনব কায়দায় প্রতারণা করে বিনিয়োগারীদের ১১ কোটি টাকা হাতিয়ে নিলো রহিম বাদশা অভিনব কায়দায় প্রতারণা করে বিনিয়োগারীদের ১১ কোটি টাকা হাতিয়ে নিলো রহিম বাদশা
হাতিরঝিল হবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ৫০তম থানা হাতিরঝিল হবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ৫০তম থানা
পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার গত ২ বছরের ডায়াগনস্টিক টেস্টের সব রিপোর্ট ভুল দিয়েছে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার গত ২ বছরের ডায়াগনস্টিক টেস্টের সব রিপোর্ট ভুল দিয়েছে
চার ধরনের শারীরিক মিলন ইসলামে নিষিদ্ধ চার ধরনের শারীরিক মিলন ইসলামে নিষিদ্ধ
প্রায় তিন বছর পর দেশে ফিরছেন জাকির নায়েক! প্রায় তিন বছর পর দেশে ফিরছেন জাকির নায়েক!

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
বেকারদের জন্য অনুপ্রেরনা…ফরিদপুর এর লিখন
বিশ্বের শীর্ষ ১৩ ‘ডিসিশন মেকার্স’ ক্যাটাগরিতে শেখ হাসিনা
টমেটো ধূমপানের ক্ষতি কমাবে
৩৪ বার কাটছাঁটের শিকার ‘কেয়া কুল’
ব্রেকআপের পরে ‘জাস্ট ফ্রেন্ড’ হওয়া সম্ভব না
প্রেমে পড়লে শরীরে যে ছয়টি মজার পরিবর্তন ঘটে